Infinix Hot 11S বনাম Xiaomi Redmi 10 কোনটি সেরা?

Xiaomi Redmi 10  VS Infinix Hot 11s
 হ্যালো এভ্রিওয়ান! এই মুহূর্তে  কোন ফোন-টি সেরা শাওমি রেডমি ১০ না-কি ইনফিনিক্স হট ১১ এস দুটো ফোনের কনফিগারেশন  সমান কিন্তু   দুটো ফোনের দামের পার্থক্য প্রায় ৪ থেকে ৫ হাজারের টাকার মতো। এই জন্য, আজকে আমরা এই মোবাইল দুটো-কে বিশ্লেষন করব। এবং আমরা চেষ্টা করব কোন ফোন-টা আমাদের কেনা উচিত হবে ১৫ থেকে ২০ হাজার দাম অনুযায়ী। তো চলুন তাহলে আজকের এই পোষ্টে আমরা  দেখে আসি কোন  ফোনটা  সেরা।

প্রথমে চলুন আমরা জেনে আসি এই  মোবাইল দুটোর স্পিড টেস্ট ।


এই ফোন দুটির স্পিড চেক করতে যেয়ে  ইনফিনিক্স হট ১১ এস এই মোবাইলটির "রিড  স্পিড" পেয়েছি আমরা  ১৮৩ মেগাবাইট পার সেকেন্ড এবং "রাইট স্পিড" পেয়েছি ৫৫ মেগাবাইট পার সেকেন্ড ।

অপর দিকে শাওমি রেডমি ১০ এর  স্পিড চেক করতে যেয়ে   আমরা "রিড  স্পিড" পেয়েছি ২১৫ মেগাবাইট পার সেকেন্ড এবং রাইট স্পিড" পেয়েছি ১৬৬ মেগাবাইট পার সেকেন্ড। 


এই দুটো মোবাইলের হার্ডওয়্যার এবং কম্পরিজনের কথা বলতে গেলে দুটো মোবাইলে সেম হার্ডওয়্যার  রয়েছে। দুটো মোবাইলে প্রসসের  হিসাবে রয়েছে "মিডিয়া টেক  হেলিয়ো জি৮৮ " এবং দুটো মোবাইলের জিপিউ রয়েছে "মালি জি৫২" দুটো মোবাইলেয় ৬ জিবি র‍্যাম এবং ১২৮ জিবি ইন্টারন্যাল স্টোরেজ রয়েছে। এবং দুটো মোবাইলেরই স্টোরেজ টাইপ "ই এম এম সি ৫.১" এবং র‍্যামের টাইপ "এল পি ডি ডি আর এক্স" । এই ফোন দুটোর কম্পিরিজনের কথা বলতে গেলে থিওরিটিক্যাল এবং প্র্যাক্টিকালি খুব বেশী একটা  পার্থক্য নেই।


গেমিং কম্পরিজনের কথা বলতে গেলে পাবজি গেম খেলার সময় দুটো মোবাইল থেকে হায়েস্ট এইচডি গ্রাফিক্সে হাই ফ্রেম রেটে খেলা যাবে এবং দুটো মোবাইলে সর্বোপরি পাবজি গেমের পারফরম্যান্স-টি ভালো পাওয়া যাবে। তবে রেডমি ১০ থেকে ইনফিনিক্স হট ১১ এস এস এর  পাবজি গেমের  পারফরম্যান্স-টি ভালো পাওয়া যাবে।


অপর দিকে কল অফ ডিউটি গেমস টা অভার অল অপটিমাইজড গেম এটা দুটো ফোনেয় মিডিয়াম গ্রফিক্সে হাই ফ্রেমে স্মুথলি  খেলা যাবে । দুটো মোবাইলেয় সিমিলারি পারফরম্যান্স পাওয়া যাবে। 

অপর দিকে  এস্প্যালাট ৯ গেমস-টি খেলার সময় গেমসটি স্টার্ট করলে শুরুর দিকে কিছু ল্যাগি ল্যাগি ও ফ্রেম ড্রপ পাওয়া যাবে তবে গেমস-টি কিছুক্ষণ খেললে বেটার রেজাল্ট পাওয়া যাবে।  তো অভার অল বলে বেশ কম্পরটফিল নিয়ে গেমস টি খেলা যাবে।


এছাড়াও এই ফোন দুটোতে ফ্রি-ফায়ার সহ অনেক ধরনের গেমস খুব ভালভাবে প্লে করা যাবে। 

এবার কথা বলা যাক এই ফোন দুটোর ডিজাইন এবং আউটলুকের কথা তবে ফোন দুইটার ডিজাইনে কিছু পার্থক্য রয়েছে  ।  ডিজাইন এবং আউটলুকের কথা বলতে গেলে ইনফিনিক্স হট ১১ এস  এই ফোনটার ডিসপ্লে সাইজ হচ্ছে ৬.৭৮ ইঞ্চি এবং এটার ওজন হচ্ছে ২০০ গ্রাম এবং থিকনেস হচ্ছে ৮.৮ মিলিমিটার 


অপর দিকে শাওমি রেডমি ১০ এই ফোনটার ডিসপ্লে সাইজ হচ্ছে ৬.৫ ইঞ্চি এবং থিকনেস হচ্ছে ৮.৯ মিলিমিটার। কিন্ত এই ফোনের ওজন ইনফিনিক্স হট ১১ এস   ফোনের ওজনের তুলনায় অনেক কম । ফোন্টির ওয়জন হচ্ছে ২৮১ গ্রাম। 


যদি অভারঅল ইনহ্যান্ডের কথা বলেন তাহলে রেডমি ১০ এই ফোনটা এগিয়ে থাকবে। ইনফিনিক্স হট ১১ এস ডিসপ্লে সাইজ টা একটু বড় যার জন্য ফোনোটা এক হাতে নিলে একটু আনকম্পরফিল করতে পারেন। 


 দুটো ফোনের  ডিসপ্লে এবং ব্যাটারির কথা বললে দুটো ফোনেই ৯০ হার্টজ  রিফ্রেশ রেট ব্যবহার করা হয়েছে দুটো ফোনেই  এইচ ডি প্লাস রেজুলেশনের আইপিএস এলসিডি প্যানেলের ডিসপ্লে ব্যবহার করা হয়েছে এবং দুটো ফোনেই রয়েছে ৫০০০ এম এ এইচ এর হিউজ ব্যটারি ফোন দুটোতে রয়েছে টাইপ সি চারজিং পোর্ট। তবে  শাওমি রেডমি ১০ ফোনটির ডিসপ্লের পি পি আই হচ্ছে ৪০৯ এবং ইনফিনিক্স হট ১১ এস ফোনটির ডিসপ্লের পি পি আই হচ্ছে ৩৯৯।  

 

 ফোন দুটি ইউআই বা ইউজার ইন্টারফেজের অপটিমাজের কথা বলতে গেলে শাওমি রেডমি ১০  রয়েছে  এম আই ১২.৫ ভার্সন আর ইনফিনিক্স হট ১১ এস  রয়েছে এক্স ও এস ৭.৬ ভার্সন-টি । তবে দুটো ইউ আই এর মধ্য এমআই ইউআই টি এগিইয়ে থাকবে  কারণ শাওমি ইউজার  ইন্টারফেজ টি অনেক স্মপিল এবং  এক্সট্রা অ্যাপ মুক্ত।  অপরদিকে ইনফিনিক্সের ইউআই টিতে অতিরিক্ত অ্যাপ থাকে (যদিও এখন আনইনস্টল করা যায়)  ইউ আই এর দিক থেকে শাউমি এগিয়ে থাকবে।  দুটো  ফোনেই সব ধরনের সেন্সর রয়েছে তবে শাওমি রেডমি ১০ ফোনে ৪ টি সেন্সর বেশী রয়েছে। 

 

দুটো ফোনের এ সিকিউরিটি অর্থাৎ ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সরের কথা বললে শাওমি রেডমি ১০ এই ফোনটির  ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর সাইডে। এবং ইনফিনিক্স হট ১১ এস ফোনটির ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর রেয়ার প্যানেলে বা  ব্যাকসাইডে। দুটো ফোনেই  ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর-টি ঠিকাঠাক এবং একিউরেটভাবে কাজ করছিল। আপনি যদি ইনহ্যান্ডফিলের কথা বলেন তাহলে  শাওমি রেডমি ১০ ফোনটি একটু এগিয়ে থাকবে।


 মোবাইল ফোনের ক্যামেরা কম্পরিজনের কথা বলতে গেলে দুটো ফোনের রেয়ারে রয়েছে ৫০ মেগাপিক্সেলের মেইন ক্যামেরা । তবে ইনফিনিক্স হট ১১ এস এর মেইন ক্যামেরার এপারচার হচ্ছে ১.৬ এপারচার যেটা খুব সারপ্রাইজিং কারন এর দামের বিবেচনায় ঠিকঠাকই আছে। এর পাশাপাশি রয়েছে ২ মেগাপিক্সেলের ডেপথ সেন্সর এবং  ২ মেগাপিক্সেলের এ আই লেন্স। অপরদিকে রেডমি ১০ মোবাইলটি তে রয়েছে ৮ মেগাপিক্সেলের আল্ট্রাওয়াইড ক্যামেরা এবং ২ মেগাপিক্সেলের ম্যাক্রো লেন্স এবং ২ মেগাপিক্সেলের ডেপথ সেন্সর।

 

 দুটো মোবাইলের ছবির কোয়ালিটি প্রায় সেম। কিন্তু রেডমি ১০ ফোনটিতে ৮ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা থাকা একটু বেটার রেজাল্ট পাওয়া যাবে। তবে এখানে দাম বিবেচনা করতে হবে ।

 শাওমি রেডমি ১০ ফোনটি ৪ জিমি র‍্যাম এবং ৬৪ জিবি রোম এর দাম ১৮,৯৯০ টাকা এবং ইনফিনিক্স হট ১১ এস  ফোনটি ৪ জিমি র‍্যাম এবং ৬৪ জিবি রোম এর দাম ১৪,৯৯০ টাকা ।


অপরদিকে শাওমি রেডমি ১০ ফোনটি ৬ জিমি র‍্যাম এবং ১২৮  জিবি রোম এর দাম ২০,৯৯০ টাকা এবং ইনফিনিক্স হট ১১ এস  ফোনটি ৬  জিমি র‍্যাম এবং ৬ জিবি রোম এর দাম ১৫,৯৯০ টাকা । 

বাজেট গেমিং ,ক্যামেরা এবং মিডিয়ার কাজ  ইত্যাদি কাজ করা যাবে দুটো ফোন দিয়েই । কিন্তু শাওমি রেডমি ১০ এর দাম  ইনফিনিক্স হট ১১ এস তুলনায় প্রায় ৪ হাজার টাকার বেশী  তাই শাওমি রেডমি ১০ ফোনটি  পিছিয়ে  থাকবে।


সবশেষে আমাদের মতামত আপনার জন্য কোন  ফোনটা  কেনা উচিত হবে ?


আমরা দুটো মোবাইলের ডিজাইন, বিল্ড কোয়ালিটি  এবং পারফরম্যান্স প্রায় সমান পেলাম। কিন্তু  ফোনটির দাম বিবচেনায় অনেক পার্থক্য রয়েছে। তাই আপনার বাজেট যদি ১৫,০০০ টাকা হয় তাহলে আপনি  ইনফিনিক্স হট ১১ এস নিতে পারেন। আর আপনার বাজেট যদি ২০,০০০ টাকা হয় তাহলে আপনি শাওমি রেডমি ১০ ফোনটি নিতে পারেন ।

 

Post a Comment

নবীনতর পূর্বতন